প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলা: সাতক্ষীরায় ৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

0
133
প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলা: সাতক্ষীরায় ৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ
প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলা: সাতক্ষীরায় সাক্ষ্যগ্রহণ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা মামলায় সাতক্ষীরার আদালতে আরো ৩জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। এ নিয়ে মামলায় মোট ১৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (০১ ডিসেম্বর) দুপুরে সাতক্ষীরার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ুন কবিরের আদালতে আসামিদের উপস্থিতিতে সাক্ষ্য দেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত গাড়িচালক শেখ নজিবুল্লাহ, সাতক্ষীরার সিনিয়র সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী ও দৈনিক সাতনদী পত্রিকার সম্পাদক হাবিবুর রহমান। এ নিয়ে এ মামলায় মোট ৩০ সাক্ষীর মধ্যে ১৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। এ মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে ৯ ডিসেম্বর।

সাতক্ষীরার মুখ্য বিচারিক হাকিম হুমায়ুন কবিরের আদালতে মঙ্গলবার দুপুরে তারা সাক্ষ্য দেন বলে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মুনির জানান।

মুনির বলেন, সেদিনের হামলার ঘটনা উল্লেখ করে সাক্ষ্য দিয়েছেন এ তিন সাক্ষী। আগামী দুই মাসের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তি হবে আশা করি। একই সঙ্গে মাহফুজা ধর্ষণের মামলাটিও পুনরুজ্জীবিত করতে নথিপত্র দেখা হয়েছে বলে তিনি জানান।

তিনজন সাক্ষীই বিএনপির সাবেক এমপি হাবিব ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর নাম উল্লেখ করেছেন। এ তথ্য জানিয়ে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মুনির আরো বলেন, সেদিন যদি সাতক্ষীরার কলারোয়ায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা করা না হতো তাহলে ধর্ষণ মামলার আসামিরা আর উৎসাহিত হত না। সেদিন যদি বিচার হতো তাহলে বাংলাদেশে ধর্ষণের মামলা শেষ হয়ে যেত।

২০০২ সালের ৩০ অগাস্ট তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ‘ধর্ষণের শিকার’ এক নারীকে দেখতে যান। হাসপাতাল থেকে ঢাকায় ফেরার পথে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাতক্ষীরার কলারোয়া বিএনপি কার্যালয়ের সামনে গাড়িবহরে হামলার অভিযোগ ওঠে তৎকালীন সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

নানা প্রতিকূলতার পর উচ্চতর আদালত চলতি বছরের ২২ অক্টোবর মামলাটির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নথি পাওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতকে নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশ অনুযায়ী মামলাটি বিচারিক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here